1. admin@chattogramsangbad.net : chattomsangba :
  2. editor@chattogramsangbad.net : editor :
চট্টগ্রামে কারাবন্দির মৃত্যু: ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা পিবিআইকে তদন্তের আদেশ - দৈনিক চট্টগ্রাম সংবাদ
April 15, 2024, 2:56 pm

চট্টগ্রামে কারাবন্দির মৃত্যু: ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা পিবিআইকে তদন্তের আদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : Monday, March 4, 2024
  • 29 বার পড়েছে

চট্টগ্রাম কারাগারে রুবেল দে (৩৮) নামে এক বন্দির অস্বাভাবিক মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় সিনিয়র জেল সুপার, জেলারসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে দায়ের করা অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা নিরূপণের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই)। রবিবার (৩ মার্চ) দুপুরে মহানগর দায়রা জজ ড. বেগম জেবুন্নেছার আদালত এ আদেশ দেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী অজয় ধর বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘কারাগারে ভিকটিম রুবেল দের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলার ধার্য তারিখে আজ আদালত আদেশ দিয়েছেন। মামলাটি তদন্ত করে আগামী ২৭ মার্চের মধ্যে প্রতিবেদন আদালতে জমা দিতে পিবিআই চট্টগ্রাম মেট্রো অঞ্চলের পুলিশ সুপারকে আদেশ দেওয়া হয়েছে। নির্যাতন এবং হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইন-২০১৩-এর ১৫(২) ধারায় অভিযোগ এনে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।’

এর আগে ২০ ফেব্রুয়ারি মহানগর দায়রা জজ ড. বেগম জেবুন্নেছার আদালতে মামলাটি করেন কারাগারে মারা যাওয়া রুবেলের স্ত্রী পূরবী পালিত।

এ মামলার আসামিদের মধ্যে রয়েছেন- চট্টগ্রাম কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার (ভারপ্রাপ্ত) মুহাম্মদ মঞ্জুর হোসেন, জেলার মোহাম্মদ এমরান হোসেন মিঞা, ডেপুটি জেলার নওশাদ মিয়া, মো. আখেরুল ইসলাম, সুমাইয়া খাতুন, ইব্রাহিম, কারাগারের পদ্মা ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের মাস্টার, বোয়ালখালী থানার ওসি মো. আছহাব উদ্দিন, একই থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সাইফুল ইসলাম, উপপরিদর্শক (এসআই) এসএম আবু মুসা, রিজাউল জব্বার, সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মাঈন উদ্দিন, মো. সাইফুল ইসলাম, কনস্টেবল কামাল, আসাদুল্লাহ ও ঘটনার দিন দায়িত্বে থাকা থানার ডিউটি অফিসার। এ ছাড়া অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে।

পূরবী পালিত জানান, গত ২৭ জানুয়ারি চোলাই মদ উদ্ধারের ঘটনায় করা মামলায় রুবেলকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় বোয়ালখালী থানা পুলিশ। ৫ ফেব্রুয়ারি সকালে কারাগার থেকে রুবেলের মৃত্যুর খবর পান স্বজনরা।

মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেন, বোয়ালখালী উপজেলার দক্ষিণ জৈষ্ঠপুরা বেনী মাধবের বাড়ির বাসিন্দা তারা। গত ২৭ জানুয়ারি বিকাল ৩টায় বাড়ি থেকে রুবেলকে স্থানীয় চৌকিদার জয় চক্রবর্তী এবং ইউপি সদস্য মো. হাসান চৌধুরীর সহযোগিতায় আটক করে পুলিশ। ওইদিন রাত ৮টার দিকে বিশেষ অভিযানের কথা বলে মদসহ গ্রেফতারের মিথ্যা মামলা সাজানো হয়। রাত ৯টার দিকে পুলিশ ফোন করে রুবেলকে ছাড়িয়ে নেওয়ার জন্য পরিবারের কাছে দুই লাখ টাকা ঘুষ দাবি করে। টাকা না দিলে ৫০০ লিটার চোলাই মদ দিয়ে মিথ্যা মামলায় আদালতে চালান দেওয়া হবে বলে হুমকি দেয়। পরিবার টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে থানায় বসে ২০০ লিটার চোলাই মদ উদ্ধারের মিথ্যা মামলার এজাহার সাজানো হয়। সেইসঙ্গে ভুয়া জব্দ তালিকা তৈরি করে এক পুলিশ সদস্য বাদী হয়ে বোয়ালখালী থানায় রুবেলের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করেন। পরদিন ২৮ জানুয়ারি বোয়ালখালী থানার এসআই রিযাউল জব্বার শারীরিক আঘাতের কথা গোপন রেখে রুবেলকে আদালতে সোপর্দ করেন। পরে আদালত কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এজাহারে আরও বলা হয়, গত ২ ফেব্রুয়ারি রুবেলকে কারাগারে দেখতে যান স্বজনরা। সেদিন তাকে হুইলচেয়ারে করে স্বজনদের সামনে আনা হয়। তখন স্বজনরা কপালে ও ডান চোখের ভ্রুতে জখম, মুখ দিয়ে লালা ঝরা এবং নিস্তেজ অবস্থায় মাথা হেলে পড়া অবস্থায় রুবেলকে দেখতে পান। এমনকি কথা বলার মতো শক্তিও ছিল না তার।

এর কারণ জানতে চাইলে স্বজনদের তাড়িয়ে দিয়ে কারারক্ষীরা রুবেলকে কারাগারে নিয়ে যান। ৪ ফেব্রুয়ারি আইনজীবীর মাধ্যমে রুবেলের উন্নত চিকিৎসার জন্য আদালতে আবেদন করেন স্বজনরা। আবেদন গ্রহণ করে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নিয়ে আদালতকে জানানোর জন্য জেল সুপারকে নির্দেশ দেন বিচারক। ৫ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টায় স্থানীয় ইউপি সদস্য প্রদীপ সূত্রধরের মাধ্যমে পূরবী পালিত জানতে পারেন রুবেল মারা গেছেন। তার লাশ চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে আছে। সেখানে গিয়ে তারা লাশ দেখতে পান।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আছহাব উদ্দিন বলেন, ‘রুবেলকে চোলাই মদসহ গ্রেফতারের পরদিন আদালতে চালান দেওয়া হয়। তার কাছে যে পরিমাণ মদ পেয়েছি, তা দিয়ে মামলা দেওয়ার পর আদালতে সৌপর্দ করা হয়েছে। থানায় কোনও ধরনের নির্যাতন কিংবা মারধর করা হয়নি। থানায় সিসিটিভি ক্যামেরা আছে। আদালতে নেওয়ার সময় রুবেল সুস্থ ছিল। পায়ে হেঁটে গাড়িতে উঠেছিল। এমনকি আদালতে তোলার দিনেও সুস্থ-স্বাভাবিক ছিল। এ কারণে হাসপাতালের পরিবর্তে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। কারাগারে নেওয়ার পর ওখানে কী হয়েছে, তা আমরা জানি না।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022
Customized By chattogramsangbad